রোববার

২৬ জুন ২০২২


১২ আষাঢ় ১৪২৯,

২৫ জ্বিলকদ ১৪৪৩

আসামে বন্যায় নিহত বেড়ে ১০০, পানিবন্দী ৫৫ লাখ মানুষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || বিজনেস ইনসাইডার

প্রকাশিত: ১৩:১৮, ২৩ জুন ২০২২  
আসামে বন্যায় নিহত বেড়ে ১০০, পানিবন্দী ৫৫ লাখ মানুষ

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা (২৩ জুন): ভারতের আসাম রাজ্যে বন্যায় মৃত্যুমিছিল ক্রমশ বেড়েই চলেছে। বিগত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে ৪ শিশুসহ আরও ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চলতি মৌসুমে আসামে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১০০। রাজ্যটিতে ৫৫ লাখের অধিক মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে।

এদিকে, আসামে মৌসুমী আর্দ্রতা কিছুটা কমলেও ব্রহ্মপুত্র-বরাকের মতো প্রধান নদ-নদীগুলোর পানি এখনো বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে, নতুন নতুন এলাকায় বন্যার পানি ছড়িয়ে পড়ছে।

আসামের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ (এএসডিএমএ)-এর দেওযা তথ্যমতে, রাজ্যের বন্যাকবলিত ৩২ জেলায় পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন ৫৫ লাখের বেশি মানুষ। এর মধ্যে ২৬ লাখ লোক ঘর ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে থাকতে বাধ্য হচ্ছেন। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বারপেটা জেলা।  ক্ষতিগ্রস্ত জেলাগুলোতে জেলা প্রশাসন ৮৪৫টি ত্রাণ শিবির এবং ১০২৫টি ত্রাণ বিতরণ কেন্দ্র স্থাপন করেছে। ত্রাণ শিবিরগুলোতে এরই মধ্যে প্রায় তিন লাখ মানুষ আশ্রয় নিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে— আসামের বাকসা, বারপেটা, বাজালী, বিশ্বনাথ, বোঙ্গাইগাঁও, কাছাড়, চিরাং, দররাং, ধেমাজি, ধুবরি, ডিব্রুগড়, ডিমা-হাসাও, গোয়ালপাড়া, গোলাঘাট, হাইলাকান্দী, হোজাই, কামরূপ, কামরূপ মেট্রোপলিটন, কার্বি আংলং পশ্চিম, করীমগঞ্জ, কোকরাঝাড়, লখিমপুর, মাজুলী, মরিগাঁও, নগাঁও, নলবাড়ী, শিবসাগর, সোনিতপুর, দক্ষিণ সালমারা, তামুলপুর, তিনসুকিয়া এবং উদালগুড়ী জেলাগুলো বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে।

এএসডিএমএ’র মুখপাত্র জানিয়েছে, রাজ্যের ৫ হাজার ১২৩টি গ্রাম বন্যার পানিতে তলিয়ে যায়। এতে ১ লাখ ৮ হাজার হেক্টরেরও বেশি কৃষিজমির ফসল নষ্ট হয়ে গেছে।

UCB
Nagad

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়