শুক্রবার

৩১ মে ২০২৪


১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

২২ জ্বিলকদ ১৪৪৫

দেশি মুরগির কেজি ৭০০ টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক || বিজনেস ইনসাইডার

প্রকাশিত: ১৯:২৫, ২২ মার্চ ২০২৩  
দেশি মুরগির কেজি ৭০০ টাকা

সংগৃহীত

নিজস্ব প্রতিবেদক: ব্রয়লার মুরগির দাম স্থির হলেও নতুন রেকর্ড গড়েছে দেশি ও সোনালি মুরগি। মাত্র ৪ দিনের ব্যবধানে ৩০ থেকে ৫০ টাকা বেড়ে দেশি মুরগির কেজি ঠেকেছে ৭০০ টাকায় আর সোনালী মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৩৮০ টাকায়। এদিকে তীব্র সংকটে পড়ে ডিমের ডজন আবারও উঠেছে ১৪০ টাকায়।

আজ বুধবার (২২ মার্চ) রাজধানীর বিভিন্ন কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা যায়, দাম বাড়ার প্রতিযোগিতায় নেমেছে বিভিন্ন জাতের মুরগি। দামের রেকর্ড গড়ে ২৬০ টাকা কেজিতে ব্রয়লার থামলেও হু হু করে বেড়ে দেশীয় মুরগির কেজি ঠেকেছে ৭০০ টাকায়। মাত্র ৪ দিনে ৩০ টাকা বেড়ে প্রতিকেজি সোনালী মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৩৮০ টাকায়। এদিকে গত সপ্তাহে ৩৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া পাকিস্তানি মুরগির দাম চলতি বছরে ঠেকেছে ৩৭০ টাকায়।

মুরগির বাজার হাতের নাগালের বাইরে চলে যাওয়ায় আক্ষেপ করে এক ক্রেতা বলেন, গত সপ্তাহেই ২৫০ টাকা কেজি দরে ব্রয়লার মুরগি কিনেছি। আজ প্রতি কেজি ২৬০ টাকা দরে কিনতে হচ্ছে।

আরেকজন ক্রেতা বলেন, ‘প্রতি কেজিতে যদি ৭০ টাকা করে বাড়ে, তহালে আমাদের মতো মানুষ কিভাবে বাজার করে খাবে?

বাজার ঘুরে জানা গেল, বেশি দাম পাওয়ায় মুরগি বিক্রি করে খামার ফাঁকা করায় তীব্র সংকটে পড়েছে ডিমের বাজারও। ২/৩ দিনের ব্যবধানে প্রতি ডজনে দাম বেড়েছে ১৫ টাকা।

এক ডিম বিক্রেতা বলেন, গত সপ্তাহে লাল ডিম ১২৫ টাকা থেকে ১৩০ টাকা ডজন দরে বিক্রি করেছি। চলতি সপ্তাহে লাল ডিমের ডজন ১৪০ টাকা করে বিক্রি করছি। কমে বেঁচা যায় না। আমাদের লোকসান হয়।

বাজারের মুদি বিক্রেতারা জানালেন, রমজানের আগে বিক্রি কিছুটা বাড়লেও বাড়েনি ডাল, বেসন, তেল, ছোলাসহ মুদিপণ্যের দাম। তবে ৫ মাসেও তেমন উন্নতি হয়নি চিনির বাজার পরিস্থিতির। প্রতি কেজি চিনির ১১২ টাকা থেকে ১১৫ টাকা করে বিক্রি করা হচ্ছে। এদিকে রমজানের আগেই প্রতি ডজন লেবু বিক্রি হচ্ছে ২১০ থেকে ৩০০ টাকায়।

প্রতিনিয়ত লাফিয়ে দাম বাড়ার অভিযোগ করে এক ক্রেতা বলেন, আগে ৮০ টাকা দরে ছোলা কিনেছি। আজ এসে শুনি ৯০ টাকা কেজি। এদিকে চিনির বাজার তো কিছুতেই স্বাভাবিক হচ্ছে না।

এদিকে রমজান উপলক্ষে বেসরকারি একটি কোম্পানির সুলভমূল্যে বিক্রি কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাজারকে কড়া নজরদারিতে রাখা হয়েছে বলে ভোক্তাদের আশ্বস্ত করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের মহাপরিচালক এ. এইচ. এম সফিকুজ্জামান। তিনি বলেন, বাজারে পণ্যের সরবরাহ স্বাভাবিক থাকবে। কাজেই আমরা আশা করছি, ভোক্তাদের স্বস্তি দিতে পারবো।

তবে ব্রয়লার মুরগির দাম অত্যাধিক উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা এটি নিয়ে কাজ করছি। 

Walton

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়