United Commercial Bank (UCB)

শুক্রবার

০২ ডিসেম্বর ২০২২


১৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯,

০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

পঞ্চগড়ে নৌকাডুবিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৩

পঞ্চগড় প্রতিনিধি || বিজনেস ইনসাইডার

প্রকাশিত: ১২:২৬, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২   আপডেট: ১৩:০৬, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
পঞ্চগড়ে নৌকাডুবিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৩

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা (২৬ সেপ্টেম্বর): পঞ্চগড়ের নদীতে নৌকাডুবিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৩ জনে দাঁড়িয়েছে। এ ঘটনায় ফায়ার সার্ভিসের রংপুর, রাজশাহী ও কুড়িগ্রামের তিনটি ডুবুরি দল উদ্ধারকাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে, স্বজনরা দাবি করেছেন, এখনো ৫৮ জন নিখোঁজ আছেন।

আজ সোমবার সকাল এগারোটার দিকে উপজেলার মারেয়া বামনহাট ইউনিয়ন পরিষদে খোলা তথ্যকেন্দ্র থেকে গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) ও তদন্ত কমিটির প্রধান দীপঙ্কর রায়।

এর পূর্বে রবিবার রাত ১১টা পর্যন্ত ২৪ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছিল পঞ্চগড় জেলা প্রশাসন। এরপর গভীর রাতে একজন এবং আজ ভোর থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ৮ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এসব লাশ মারেয়া আউলিয়ার ঘাট, দেবীগঞ্জ করতোয়া সেতু ও দিনাজপুরের খানসামা সেতু এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

গতকাল দুপুর আড়াইটার দিকে পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার মাড়েয়া বামনহাট ইউনিয়নের আউলিয়ার ঘাট এলাকায় করতোয়া নদীতে নৌকাডুবির এ ঘটনা ঘটে। এখন পর্যন্ত নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে ১৬ জন নারী, ১১ শিশু ও ৬ জন পুরুষ আছেন বলে জানা গেছে। 

পঞ্চগড়ের জেলা প্রশাসক মো. জহুরুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানান, মৃতদের সৎকার ও দাফনপ্রক্রিয়ার জন্য প্রাথমিকভাবে প্রত্যেক পরিবারকে ২০ হাজার করে টাকা দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া মৃত ব্যক্তিদের প্রতি পরিবারকে ১ লাখ করে টাকা দেওয়া হবে। 

তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনা তদন্তে পাঁচ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সোলেমান আলী প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমকে জানান, শারদীয় দুর্গোৎসবের মহালয়া উপলক্ষে শতাধিক মানুষ শ্যালো ইঞ্জিনচালিত একটি নৌকায় করে বদেশ্বরী মন্দিরের দিকে যাচ্ছিলেন। ঘাট থেকে নৌকাটি কিছু দূর যাওয়ার পর দুলতে শুরু করে। এ সময় মাঝি নৌকাটি ঘাটে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করেন। এরপরও এক সময় নৌকা ডুবে যায়। নৌকার যাত্রীদের অনেকেই সাঁতরে তীরে ওঠেন। এ সময় তাদের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন উদ্ধারকাজে যোগ দেন এবং পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে উদ্ধারকাজ শুরু করেন।

Nagad

সর্বশেষ