শুক্রবার

২৭ মে ২০২২


১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯,

২৪ শাওয়াল ১৪৪৩

যুক্তরাজ্যে মূদ্রাস্ফীতি ৩০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || বিজনেস ইনসাইডার

প্রকাশিত: ১৫:৫২, ১৯ জানুয়ারি ২০২২  
যুক্তরাজ্যে মূদ্রাস্ফীতি ৩০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা (১৯ জানুয়ারি): যুক্তরাজ্যে মূদ্রাস্ফীতি প্রায় ৩০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছেছে। বুধবার প্রকাশিত সরকারি তথ্যে দেখা যাচ্ছে ডিসেম্বর মাসে ব্রিটেনে কনজিউমার প্রাইস ইনফ্লেশন (সিপিআই) ধারণার চেয়ে অনেকে বেশি বেড়ে ৫ দশমিক ৪ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।

এ অবস্থাপর পরিপ্রেক্ষিতে ব্যাংক অব ইংল্যান্ডকে আগামী মাসেও সুদের হার বাড়ানোর চাপে রয়েছে।

রয়টার্স পরিচালিক অর্থনীতিবিদদের এক জড়িপে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছিল যে বার্ষিক সিপিআই রেট নভেম্বর মাসের ৫ দশমিক ১ শতাংশ থেকে বেড়ে ডিসেম্বরে ৫ দশমিক ২ শতাংশে দাঁড়াবে।

জাতীয় পরিসংখ্যান অফিস থেকে বলা হয়েছে ১৯৯২ সালের মার্চের পর থেকে মূদ্রাস্ফীতির এ হার সর্বোচ্চ। বেশ কিছু পণ্য এবং সেবায় এর প্রভাব লক্ষ্য করা গেছে বলে পরিসংখ্যান অফিস উল্লেখ করেছে। এর সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়েছে খাদ্য ও পানীয়ের ওপর।

তবে এ মুদ্রাস্ফীতি বাড়ার ওপর ডিসেম্বরে করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক চাপের কোন প্রভাব পড়েনি।

নভেম্বর মাসে মুদ্রাস্ফীতি ১০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌছানোর একদিন পর বিশ্বের প্রথম ব্যাংক হিসেবে ব্যাংক অব ইংল্যান্ড গত মাসে করোনা পরিস্থিতিতে সুদের হার বাড়ানোর ঘোষণা দেয়।  

মুদ্রাস্ফীতি বাড়ার কারণে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সরকার রাজনৈতিকভাবেও সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে। আগামী এপ্রিল মাস থেকে বাসাবাড়িতে ব্যবহৃত বিদ্যুতের দাম ৫০ শষতাংশ বাড়ার পরিকল্পনা করা হলেও বিরোধীদল এবং বিভিন্ন চ্যারিটির কাছ থেকে এ উদ্যোগ না দেওয়ার চাপ রয়েছে।

এ মুদ্রাস্ফীতির ব্যাপারে অর্থমন্ত্রী রিশি সুনাক বলেছেন, জনগণ জীবনযাত্রার ব্যয় মেটাতে যে চাপে আছেন সেটা আমি বুঝি। তাদের ভোগান্তির বিষয় মাথায় রেখেই আমরা কাজ করবো।

ব্যাংক অব ইংল্যান্ড এক পূর্বাভাসে বরছে মাত্রাতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিলের কারণে মুদ্রাস্ফীতি আগামী এপ্রিলে ৬০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়তে পারে। মুদ্রাস্ফীতির লক্ষ্য ২ শতাংশে নামিয়ে আনতে দুই বছরের বেশি সময় লাগতে পারে।     

 

UCB

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়